Sunday, December 27, 2020

নান্যাচর, কুদুকছড়ি ও লংগদুতে ইউপিডিএফের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

রাঙামাটি, সিএইচটি নিউজ
শনিবার, ২৬ ডিসেম্বর ২০২০

রাঙামাটির নান্যাচর, কুদুকছড়ি ও লংগদুতে ইউপিডিএফের ২২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করা হয়েছে।

কর্মসূচির মধ্যে ছিল দলীয় পতাকা উত্তোলন, অস্থায়ী শহীদ স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ, আলোচনা সভা ইত্যাদি।

নান্যাচর:

রাঙামাটির নান্যাচরে ইউপিডিএফ’র ২২তম প্রতিষ্ঠাবাষির্কী সফলভাবে পালিত হয়েছে।


আজ ২৬ ডিসেম্বর ২০২০, শনিবার সকাল ৮টায় দলীয় সংগীত বাজিয়ে পার্টি পতাকা উত্তোলন করা হয়। এর পরেই শহীদের উদেশ্য অস্থায়ী শহীদ স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পমাল্য অর্পন করেন সুকীর্তি চাকমা, রিপরিপ চাকমা, নবায়ন চাকমা, শহীদ পরিবারবর্গের পক্ষে পুষ্পমাল্য অপর্ন করেন শান্তনা চাকমা, সুচমিতা চাকমা, নান্যাচর এলাকাবাসীর পক্ষে পুষ্পমাল্য অর্পন করেন নান্যাচর উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান কুমেন্টু বিকাশ চাকমা। এর পরপরই অস্থায়ী স্মৃতিস্তম্ভের সামনে পার্টি সদস্যদের অধিকার আদায় না হওয়া পর্যন্ত অবিচল থাকার প্রতিজ্ঞাপত্র পাঠ করান সুকীর্তি চাকমা। পরে শহীদের উদেশ্য দাঁড়িয়ে ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

এরপর অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় আলোচনা সভায় পাহাড়ি চাত্র পরিষদের রাঙামাটি জেলা শাখার সহসভপতি নেপচুন চাকমার সঞ্চালনায় ও সুকীর্তি চাকমার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বিলাস চাকমা, ২ নং নান্যাচর ইউপি সদস্য মিরিটন চাকমা, বাবুল বিকাশ চাকমা, শহীদ পরিবারের পক্ষে বক্তব্য রাখেন মিসেস শান্তনা চাকমা ও নারী সংঘের নান্যাচর উপজেলার সহ-সভপতি কল্পনা চাকমা।

মঞ্চে আরও উপস্থিত ছিলেন ২নং নান্যাচর ইউপি সদস্য পূর্ণকুমার চাকমা, মহিলা কাবার্রী সুজিতা চাকমা।


বিলাস চাকমা বলেন, নব্বই দশকে ছাত্র-গণজাগরণের শক্তিকে ধারণ করেই ইউপিডিএফ জন্মলাভ করেছে। ইউপিডিএফের নেতৃত্বে আবারো পার্বত্য চট্টগ্রামে ছাত্র-গণজাগরণ সৃষ্টি করতে হবে।

কল্পনা চাকমা বলেন, প্রতিটি জায়গায় এখন নারী ধষর্ন হচ্ছে, কিন্তু সুষ্ঠু বিচার হচ্ছে না। ফলে অপরাধিরা পার পেয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, আমাদের ঘরে বসে থাকলে চলবে না। আন্দোলনের জন্য মাঠে নামতে হবে।

কুমেণ্টু চাকমা বলেন, আমরা অধিকার হারা জুম্ম জাতি এটা সবাইকে বুঝতে হবে। আমাদের ভাইয়ে ভাইয়ে যে সংঘাত তা অচিরেই বন্ধ করা দরকার। আমাদের নিরাপত্তার জন্য সকল রাজনৈতিক দলকে ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলনের ঝাপিয়ে পড়ার আহবান জানাচ্ছি।

বাবুল বিকাশ চাকমা বলেন, বর্তমান পরিস্থিতি খুবই নাজুক। সরকার যে জুম্মদের ধ্বংস করতে চায় ত্ আমাদের অনুধাবন করতে হবে।

সুকীর্তি চাকমা সকলের উদেশ্য ইউপিডিএফ এর বার্তা পড়ে শোনান। তিনি সকলকে একমন একপ্রান হয়ে কাজ করার আহবান জানিয়ে ইউপিডিএফের হাতকে শক্তিশালী করার জন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

কুদুকছড়ি:

রাঙামাটি সদর উপজেলার কুদুকছড়িতে আজ সকাল ৮টায় দলীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান শুরু করা হয়। 


পরে এ যাব
জাতীয় মুক্তির লড়াই সংগ্রামে যারা জীবন দিয়ে শহীদ হয়েছেন সে সকল বীরদের প্রতি অস্থায়ী স্মৃতিস্তম্ভে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। ইউপিডিএফ জেলা ইউনিটের পক্ষ থেকে পূষ্পস্তবক অর্পণ করেন জেলা ইউনিটের সংগঠক সচল চাকমা ও জিদং চাকমা, শহীদ পরিবারের পক্ষে রিকা চাকমা ও সোনাবী চাকমা, পার্টির সহযোগী সংগঠনের পক্ষ থেকে পিসিপির রাঙামাটি জেলা ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের রাঙামাটি জেলা শাখার সদস্যনিকি চাকমা, পার্টি পরিবারবর্গ এবং এলাকার মুরুব্বীদের পক্ষ থেকে স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।


এরপর সকল বীর শহীদের সম্মানে দাঁড়িয়ে ১ মিনিট নিরবতা পালনসহ উপস্থিত সংগঠনের সকল নেতা-কর্মীবৃন্দ পার্বত্য চট্টগ্রামে জুম্মদের ন্যায্য দাবি অর্জন না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন সংগ্রাম চালিয়ে নেয়ার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে প্রতিজ্ঞা গ্রহণ করেন।



পরে বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে পার্টি ও জনগণের করনীয় বিষয়ে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। ইউপিডিএফের রাঙামাটি জেলা সংগঠক সচল চাকমার সভাপতিত্বে ও জয়েন চাকমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন ইউপিডিএফ সংগঠক জিদং চাকমা, পিসিপি’র রাঙামাটি জেলা ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নিকন চাকমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের রাঙামাটি জেলা সদস্য সোনালিকা চাকমা, ইউপি সদস্য আলেময় চাকমা ও গ্রামের মুরব্বী নিল রঞ্জন চাকমা প্রমুখ।

এছাড়া জেলার লংগদুতেও ইউপিডএফের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় ইউপিডিএফ লংগদু ইউনিটের সংগঠক চন্দন চাকমার সভাপতিত্বে ও নিরেট চাকমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন লংগদু সদর ইউনিয়নের সাবেক সদস্য বাবু রুপম চাকমা, এলাকার মুরুব্বী বুদ্ধ কুমার চাকমা, কার্বারী বাবু বীর রন্জন চাকমা ও প্রনয় চাকমা প্রমুখ।




সিএইচটি নিউজে প্রকাশিত/প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ,ভিডিও, কনটেন্ট ব্যবহার করতে হলে কপিরাইট আইন অনুসরণ করে ব্যবহার করুন।



No comments: